পঞ্চগড়ে ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে কমলা চাষ। স্বল্প পরিসরে ছোট ছোট বাগানে আশানুরূপ ফল পাওয়ায় এবার বড় বাগান করার কথা ভাবছেন কমলা চাষিরা। সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যসম্মত হওয়ায় উৎপাদিত এ কমলা বিক্রি করে লাভবান হচ্ছেন বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা।

আর বাণিজ্যিকভাবে কমলা চাষে উদ্যোগীদের আরো বেশি সহায়তার আশ্বাস দিলেন জেলা কৃষি কর্মকর্তা।

থোকায় থোকায় ঝুলছে কমলা। তবে এটা ভিনদেশি কোন বাগানের চিত্র নয়। উত্তরাঞ্চলের জেলা পঞ্চগড়ে চোখে পড়বে কাঁচাপাকা কমলার এমন মনোরম দৃশ্য। ছোট পরিসরে চাষ করে আশানুরূপ ফল পাওয়ায় এখন ক্রমেই বড় বাগানের দিকে ঝুঁকছেন এখানকার কমলা চাষিরা।

বাগান মালিকরা জানান, সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যসম্মত হওয়ায় বাজারে এই কমলার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। ফলে লাভবান হচ্ছেন ব্যবসায়ীরাও। এছাড়া ভ্রমণ পিপাসুরাও তাদের বাগানে ঘুরতে এসে এসব কমলার প্রশংসা করছেন।

এদিকে, দেশে ফলের চাহিদা পূরণে অবদান রাখতে বাণিজ্যিকভাবে আরো বেশি কমলা উৎপাদনের উদ্যোগ নিয়েছে জেলা কৃষি বিভাগ। এজন্য চাষি ও বাগান মালিকদের সব ধরণের সহায়তার আশ্বাস দিলেন পঞ্চগড় সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আব্দুল মতিন।

জেলা কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, আমদানি কমানো ও কৃষকদের বাড়তি আয়ের লক্ষ্যে ২০০৭ সাল থেকে পঞ্চগড়ে কমলা উৎপাদন প্রকল্পের কাজ শুরু হয়।

বর্তমানে সদর উপজেলার হাফিজাবাদ, সাতমোরা ও চাকলা হাটসহ জেলার বিভিন্ন এলাকার ৭৫ হেক্টর জমিতে কমলা চাষ হচ্ছে।

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই