আন্তর্জাতিক মেইলঃ

অবশেষে মুক্ত হল সিরিয়ার দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ শহর আলেপ্পো৷ সিরিয়ায় বরাবরই আলেপ্পোর গুরুত্ব অপরিসীম৷ অথচ, অর্থনৈতিক ও রণনৈতিক দিক থেকে এত গুরুত্বপূর্ণ বন্দর শহরই বছরের পর বছর ধরে অবরুদ্ধ ও গৃহযুদ্ধে ছিন্নভিন্ন হয়ে গিয়েছিল৷ এতদিনে আবার সেখানে শান্তি ফেরার একটা সূচনা দেখা দিল৷

সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটসের খবর অনুযায়ী, বাশর আল-আসাদ জমানার বিদ্রোহীদের শেষ ঘাঁটি আলেপ্পোর পূর্বাঞ্চলও ফাঁকা হয়ে গিয়েছে৷ বিদ্রোহীরা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে৷ যদিও এখনও সেখানকার অবস্থার সব খবর পাওয়া যায়নি৷ তবে সরকার পক্ষের অনুমান, আলেপ্পোর পূর্বাঞ্চলের অন্তত ১০ হাজার বাসিন্দা গৃহযুদ্ধের অন্তিম লগ্নে পালিয়ে গিয়েছে৷ এমনিতে আলেপ্পোর যা অবস্থা তাতে বাদবাকি এলাকার বাসিন্দারা এখনও চরম দুর্দশার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন৷ যাঁরা এখনও সেখানে আছেন, তাঁরা ভালো করে খাবার কিংবা ওষুধপত্র কিছুই পাচ্ছেন না৷ প্রসঙ্গত, এই আলেপ্পোয় ত্রিমুখী যু্দ্ধ চলছিল৷ একদিকে বাশর আল-আসাদের সিরীয় বাহিনী, অন্যদিকে এক পক্ষে আইএস আরেক পক্ষে আসাদ-বিরোধী বিদ্রোহীরা৷ অভিযোগ যে, আসাদ-বিরোধী দীর্ঘদিন ধরে মদত জোগাচ্ছিল মার্কিন গুপ্তচর সংস্থা সিআইএ, ঠিক যেমনভাবে আইএস মদত পায় সৌদি আরব এবং কাতারের কাছ থেকে৷ অনেকেরই ধারণা, আলেপ্পো পুরোপুরি মুক্ত হওয়ার পিছনে আমেরিকার নির্বাচনী ফলাফলে প্রশাসনিক বদল ঘটা একটি বড় কারণ৷ তাঁদের মতে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের জয় আলেপ্পোর বিরোধীশূন্য হওয়ার পিছনে একটা বড় কারণ হলেও হতে পারে৷

 

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই